শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৪:১৪ অপরাহ্ন

ইতিবাচক ধারায় দেশের পুঁজিবাজার, বড় উত্থান

ইতিবাচক ধারায় দেশের পুঁজিবাজার, বড় উত্থান

গেল দুই সপ্তাহে বড় পতনের পর চলতি সপ্তাহের শুরুতে ইতিবাচক ধারায় দেশের পুঁজিবাজার। একদিনেই ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জর সূচক বাড়ল ২শ’ ৩২ পয়েন্ট। সেইসাথে কার্যদিবসের ব্যবধানে লেনদেন বেড়েছে ১শ’ ৪৪ কোটি টাকা। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জর সার্বিক সূচক বেড়েছে ৭শ ১১ পয়েন্ট। বেড়েছে লেনদেনও।

চলতি মাসের শুরু থেকে বেশিরভাগ সময়জুড়েই দেশের পুঁজিবাজারে ছিল নেতিবাচক ধারা। গত সপ্তাহে মঙ্গলবার সূচক নামে ৪০৩৬ পয়েন্টে।

তবে এ সপ্তাহের শুরুটা হল বেশ ইতিবাচক ভাবেই। এক দিনেই সূচক বাড়ল ২৩২ পয়েন্ট। রোববার কার্যক্রম শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স অবস্থান করছে ৪ হাজার ৩৮২ পয়েন্টে। সম্প্রতি কয়েকবছরের মধ্যে একদিনে সূচক এত পরিমাণ বাড়েনি।

এই বড় উত্থানে পাঁচটি কোম্পানি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে। এরমধ্যে গ্রামীনফোনের কারণে সূচকে বেড়েছে ৪৩, বিট্রিশ আমেরিকান টোব্যাকোর ১৯, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস ১৮, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন ৯ এবং আইসিবির কারণে বেড়েছে ৮ পয়েন্ট।

সূচকের সাথে বেড়েছে লেনদেনও। কার্যদিবসের ব্যবধানে ১৪৪ কোটি টাকা বেড়ে লেনদেন হয় ৪১১ কোটি টাকা।

লেনদেন হওয়া শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বাড়ে ৩৪৬টির; কমে ৬টির। অপরিবর্তিত ছিলো ৪টির দাম।

লেনদেনের শীর্ষে ছিলো স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেড, লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড, খুলনা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড ও এস এস স্টিল লিমিটেড।

ডিএসইর পাশাপাশি সূচকের বড় ধরনের উত্থান হয়েছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও। সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৭১১ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৩শ’ ১২ পয়েন্টে।

কার্যদিবসের ব্যবধানে ৩৫ কোটি টাকা বেড়ে লেনদেন হয় ৪৩ কোটি টাকার। লেনদেন হওয়া শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বাড়ে ২৩৬টির; কমে ১৩টির। অপরিবর্তিত ছিলো ৮টির দাম।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Add

© All rights reserved © 2017 AjKaal24.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com