রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০২:৪২ অপরাহ্ন

রিফাত হত্যা: সাক্ষ্য গ্রহণের আগে সাংবাদিককে লাঞ্ছিত

রিফাত হত্যা: সাক্ষ্য গ্রহণের আগে সাংবাদিককে লাঞ্ছিত

বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রথম সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ আজ (৮ই জানুয়ারি)। একই সঙ্গে এ মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হবে আজ বুধবার।

বুধবার, প্রথম সাক্ষ্যগ্রহণ ও চার্জ গঠন উপলক্ষে কারাগারে থাকা মামলার ২১ আসামিকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। এছাড়া, আদালতে উপস্থিত হন জামিনে থাকা আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ও প্রিন্স মোল্লা। এসময়, আদালত প্রাঙ্গণে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় দুই সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করেন আসামির স্বজনরা। বাঁধা দেন পেশাগত দায়িত্ব পালনে। গালমন্দ করেন অশ্লীল ভাষায়।

লাঞ্ছনার শিকার দুই ক্যামেরাপার্সন হলেন রিপন মালি এবং আরিফুল ইসলাম মুরাদ। বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালত প্রাঙ্গণে সকাল সাড়ে ৮টায় এ ঘটনা ঘটে।

লাঞ্ছনার শিকার ওই দুই সাংবাদিক জানান, ‘বরগুনা জেলা কারাগার থেকে সকাল সাড়ে ৮টার সময় একটি প্রিজন ভ্যানে ২২ আসামিকে আদালতে হাজির জন্য আদালত প্রাঙ্গণে নিয়ে আসে পুলিশ। প্রিজন ভ্যানটি আসার সঙ্গে সঙ্গে আমরা পেশাগত দায়িত্ব পালন শুরু করি। এসময়, রিফাত হত্যা মামলার আসামি রাকিবুল হাসান রিফাত হাওলাদার এর স্বজনসহ আরও দুজন আসামির স্বজনরা আমাদের ওপর চড়াও হন। তারা আমাদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে বাধা দেয়ার পাশাপাশি বারবার ধাক্কা দেন এবং অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ করেন।’

এদিকে, আলোচিত এ মামলার আদালত প্রাঙ্গণে সংবাদ সংগ্রহের সময় দুই সংবাদকর্মী লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বরগুনার সাংবাদিক নেতারা।

বরগুনা প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট সঞ্জীব দাস বলেন, ‘বহুল আলোচিত একটি মামলায় আদালত প্রাঙ্গণে সংবাদ সংগ্রহে এসে সাংবাদিক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনা দুঃখজনক। আমরা এ বিষয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলব। পাশাপাশি আমরা এ বিষয়ে আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করব।’

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৬শে জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্য দিবালোকে রিফাত শরীফকে স্ত্রী মিন্নির সামনে কুপিয়ে জখম করে নয়ন বন্ড-রিফাত ফরায়েজী বাহিনী। ওই দিন বিকেলে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে মামলায় ১ নম্বর সাক্ষী করা হয়। এরপর ২রা জুলাই নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। ধরা পড়েন রিফাত ফরাজীসহ কয়েকজন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Add

© All rights reserved © 2017 AjKaal24.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com