বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

মুশফিক-মিরাজের ব্যাটে টাইগারদের প্রতিরোধ

মুশফিক-মিরাজের ব্যাটে টাইগারদের প্রতিরোধ

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে মুখোমুখি বাংলাদেশ। সিরিজে টিকে থাকতে টস জিতে আগে ব্যাটিং করছে বাংলাদেশ।

মুশফিক-মিরাজ জুটিতে পঞ্চাশ
এরমধ্যেই দল উইকেট খুইয়েছে ৬টি। কিন্তু প্রথম পঞ্চাশ রানের জুটির জন্য অপেকঝা করতে হলো সপ্তম উইকেট জুটি পর্যন্ত। ১১৭ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে ইনিংস মেরামতের কাজ করছেন মুশফিকুর রহিম। তিনি দেখে খেললেও কিছুটা হাত খুলে খেলার চেষ্টা করছেন মিরাজ। জুটিতে তার অবদানই বেশি। ৪৮ বলে করা হাফসেঞ্চুরির জুটিতে মিরাজের অবদান ২৪ রান, মুশফিকের ২০।

৪১ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৭৪ রান। মুশফিক ৫৯ ও মেইরাজ ২৯ রানে ব্যাট করছেন।

মুশফিকের হাফসেঞ্চুরি
এক প্রান্তে ব্যাটসম্যানরা আসা যাওয়ার মিছিলে যোগ দিয়েছেন। তবে অপর প্রান্তটি ধরে রেখেছেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। শুরু থেকেই দায়িত্ব নিয়ে দারুণ ব্যাটিং করে যাচ্ছেন তিনি। এর মধ্যে নিজের ফিফটিও তুলে নিয়েছেন তিনি। ৭১ বলে স্পর্শ করেছেন নিজের হাফসেঞ্চুরি। এ রান করতে চার মেরেছেন ২টি।

৩৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৪৪ রান। মুশফিক ৫১ ও মিরাজ ১৩ রানে ব্যাট করছেন।

বিপদ বাড়িয়ে ফিরে গেলেন মোসাদ্দেকও
এক প্রান্তে মুশফিকুর রহিম দেখে শুনে খেলছেন। কিন্তু অপর প্রান্তে ব্যাটসম্যানরা যোগ দিয়েছেন আশা যাওয়ার মিছিলে। ৮৮ রানে ৫ উইকেট হারানো বাংলাদেশ দলের বিপদ আরও বাড়িয়ে এবার ফিরে গেলেন মোসাদ্দেক হোসেন। ইশুরু উদানার বাউন্সারে হুক করতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ব্যাটের কানায় লেগে চলে যায় উইকেটরক্ষক কুসল পেরেরার হাতে। ২৭ বলে ১৩ রান করেছেন মোসাদ্দেক।

৩২ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১১৭ রান। ৩৭ রানে ব্যাট করছেন মুশফিক। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

বাংলাদেশের দলীয় শতরান
ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট খোয়াচ্ছে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ছাড়া কোন ব্যাটসম্যানই দায়িত্ব নিতে পারেননি। ফলে রানের গতিতেও লাগাম দিতে সমর্থ হয়েছে লঙ্কান বোলাররা। ২৮ ওভার (১৬৮ বল) শেষে দলীয় শতক তুলতে পেরেছে বাংলাদেশ। প্রথম পঞ্চাশ রান করতে টাইগারদের লেগেছিল ৮০ বল।

২৯ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১০৪ রান। মুশফিক ৩৩ ও মোসাদ্দেক ৫ রানে ব্যাট করছেন।

রানআউট সাব্বির
আগের ম্যাচেও মুশফিকুর রহীমের সঙ্গে ভুল বোঝাবঝির জেরে ফিরেছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন। এবার আউট হলেন সাব্বির রহমান। আকিলা ধনাঞ্জয়ার বলে পয়েন্টে ঠেলে দিয়ে রান নিতে গিয়েছিলেন সাব্বির। মুশফিকও সাড়া দিয়েছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত বদল করেন তিনি। ততক্ষণে বিপদ সীমানায় চলে এসেছেন সাব্বির। ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার থ্রো ভালো না হলেও সময় মতো ফিরতে না পারায় রানআউট হতে হলো তাকে। ১৯ বলে ১১ রান করেছেন সাব্বির।

২৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৮৯ রান। মুশফিক ২৬ রানে ব্যাট করছেন। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মোসাদ্দেক হোসেন।

মাহমুদউল্লাহর বিদায়ে বিপদে বাংলাদেশ
বাংলাদেশের বিপদ আরও বাড়িয়ে গেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৫২ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের দিকেই তাকিয়ে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু আরও একবার হতাশ উপহার দিলেন মাহমুদউল্লাহ। আকিলা ধনাঞ্জয়ার বলে কাট করতে গিয়ে লাইন মিস করে বোল্ড হয়ে গেলেন তিনি। ১৮ বলে ৬ রান করেছেন এ ব্যাটসম্যান।

১৯ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৬৮ রান। মুশফিকুর রহিম ব্যাট করছেন ১৬ রানে। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন সাব্বির রহমান।

মিঠুনের বিদায়ে চাপে বাংলাদেশ
দুই ওপেনারের বিদায়ের পর মোহাম্মদ মিঠুনকে নিয়ে দলের হাল ধরেছিলেন মুশফিক। কিন্তু মুশফিককে খুব বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারলেন না মিঠুন। দলীয় ফিফটি তোলার পরই ফিরে গেলেন তিনি। আকিলা ধনাঞ্জয়ার প্রথম ওভারেই ফিরেছেন তিনি। তার স্লোয়ারে ড্রাইভ করতে গিয়ে শর্ট মিড উইকেটে সহজ ক্যাচ দিয়েছেন কুসল মেন্ডিসের হাতে। ২৩ বলে ১২ রান করেছেন মিঠুন।

১৫ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৫৩ রান। ৮ রানে ব্যাট করছেন মুশফিক। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

৬০০০ রানের মাইলফলকে মুশফিক
আগের ম্যাচেই এ কীর্তি গড়ার কাছে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে আউট হয়ে যান তিনি। এদিন মাঠে নামার আগে ৬ হাজারী ক্লাবে ঢোকা থেকে মাত্র ৮ রান দূরে ছিলেন তিনি। আকিলা ধনাঞ্জয়ার বলে স্কয়ার লেগে ঠেলে দিয়ে এ মাইলফলক স্পর্শ করেন মুশফিক। তৃতীয় বাংলাদেশী ব্যাটসম্যান হিসেবে এ মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি। এর আগে তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান এ কীর্তি গড়েছেন।

বাংলাদশের দলীয় পঞ্চাশ
৫ রানের ব্যবধানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে বেশ চাপে পড়েছিল বাংলাদেশ। সে চাপ থেকে দলকে উদ্ধারের চেষ্টা করছেন সাবেক অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। সঙ্গী হিসেবে পেয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুনকে। এর মধ্যেই দলীয় ফিফটি স্পর্শ করেছে দলটি। তবে বেশ ধীরে গতিতেই এসেছে দলের পঞ্চাশ। খেলতে হয়েছে ১৩.২ ওভার (৮০ বল)।

১৪ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৫০ রান। মুশফিক ৭ ও মিঠুন ১১ রানে ব্যাট করছেন।

সৌম্যর পর বিদায় নিলেন তামিমও
দুর্দশা থেকে বের হয়ে আসতে পারছেন না বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক তামিম ইকবালের। আত্মবিশ্বাস একেবারে তলানিতে গিয়ে পৌঁছেছে তার। আবারো অফ স্টাম্পের বাইরের বল টেনে বোল্ড হলেন তিনি। ইশুরু উদানার অনেক বাইরে রাখা বলে এদিন বোল্ড হলেন। এর আগে গত বিশ্বকাপেই আট ম্যাচে তিনবার একইভাবে বোল্ড হয়েছিলেন তিনি। ৩১ বলে ২টি চারের সাহায্যে ১৯ রান করেছেন তামিম।

৯ ওভার শেষে বাংলাদেশ দলের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩৩ রান। উইকেটে আছেন দুই নতুন ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন ও মুশফিকুর রহিম।

শুরুতেই ফিরে গেলেন সৌম্য
আবারো হতাশ করলেন সৌম্য সরকার। নুয়ান প্রদিপের ফুলটাস বল খেলতেই পারলেন না তিনি। পড়েছেন এলবিডব্লিউর ফাঁদে। লেগ স্টাম্পে রাখা বলটি ফ্লিক করতে গিয়ে মিস করলে বিপদ ডেকে আনেন তিনি। ১৩ বলে ১টি চারের সাহায্যে ১১ রান করেছেন সৌম্য।

এর আগে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই প্রথম ম্যাচের প্রায় পুনরাবৃত্তি ডেকে এনেছিলেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। প্রদিপ এলবিডাব্লিউর আবেদনে রিভিউ নিয়েছিলেন। তবে শেষ মুহূর্তে ব্যাটে লাগায় বেঁচে যান তিনি। তবে এরপর দেখে শুনেই ব্যাট করছেন তিনি।

৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৭ রান। ১৫ রানে ব্যাট করছেন তামিম। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মোহাম্মদ মিঠুন।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: দিমুথ কারুনারাত্নে, কুশল পেরেরা, আভিস্কা ফের্নান্ডো, কুশল মেন্ডিস, আঞ্জেলো ম্যাথিউজ, লাহিরু থিরিমান্নে, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, আকিলা ধনাঞ্জয়া, নুয়ান প্রদিপ, লাহিরু কুমারা ও ইশুরু উদানা।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, তাইজুল ইসলাম ও শফিউল ইসলাম।

শ্রীলঙ্কা দলে দুই পরিবর্তন
একটি পরিবর্তন অনুমিতই ছিল। আগের ম্যাচেই ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন লাসিথ মালিঙ্গা। তার জায়গায় এ ম্যাচে জায়গা পেয়েছেন ইশুরু উদানা। এছাড়া বিশ্বকাপ থেকেই ফর্মহীনতায় ভুগছে থিসারা পেরেরা। তাই তার জায়গায় স্পিনার আকিলা ধনাঞ্জয়াকে একাদশে নিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

রুবেলের জায়গায় তাইজুল
ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াইয়ে এক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। আগের ম্যাচে প্রত্যাশা অনুযায়ী বোলিং করতে পারেননি রুবেল। তাই এ ম্যাচে তাকে বাদ দিয়ে দিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট। তার জায়গায় বাঁহাতি স্পিনাত তাইজুল ইসলামকে একাদশে নিয়েছে তারা। সর্বশেষ ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছিলেন এ স্পিনার।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
প্রথম ওয়ানডেতে বড় ব্যবধানে হেরে এর মধ্যেই পিছিয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। সিরিজে টিকে থাকতে হলে দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের কোন বিকল্প নেই তাদের। এমন ম্যাচের শুরুটা ভালোই হয়েছে বাংলাদেশের। টস জিতে নিয়েছেন বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক তামিম ইকবাল খান। বেছে নিয়েছেন ব্যাটিং। অর্থাৎ প্রথমে ফিল্ডিং করতে হবে শ্রীলঙ্কাকে। বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

মাইলফলকের সামনে মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ
এ ম্যাচ দিয়ে নিজের ২১৫তম ম্যাচ খেলবেন মুশফিকুর রহিম। ব্যাট হাতে নামলে খেলবেন ২০১তম ইনিংস। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে দাঁড়িয়ে ছয় হাজার রান পূর্ণ করার সামনে। ২০০ ইনিংসে ব্যাট হাতে নেমে করেছেন ৫৯৯২ রান। মাইলফলক স্পর্শ করতে আর চাই ৮ রান। তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানের পর তৃতীয় বাংলাদেশী ক্রিকেটার হিসেবে এ কীর্তি গড়ার সামনে মুশফিক। অন্যদিকে ১৮৩টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। রান করেছেন ৩৯৭৯। আর ২১ রান করলেই চার হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করবেন তিনি। তামিম, সাকিব ও মুশফিকের পর চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে চার হাজারের রানের এ কীর্তি গড়বেন সাইলেন্ট কিলার।

ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া বাংলাদেশ
বিশ্বকাপের ব্যর্থতা শ্রীলঙ্কায় ঘোচাতে চেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু উল্টো প্রথম ওয়ানডেতে বিশাল ব্যবধানে হেরে গেছে টাইগাররা। দ্বিতীয় ম্যাচে তাই ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া টাইগাররা। আগের ম্যাচে পেস বা স্পিন, বোলিংয়ের কোনো বিভাগেই নজর কেড়ে নেওয়ার মতো কিছু ছিল না। ফিল্ডিংয়ের বেহাল দশা নিয়ে চায়ের কাপে ঝড় তোলা তো সেই বিশ্বকাপ থেকেই। যে ব্যাটিং লাইনআপ নিয়ে বিশ্ব সেরাদের আসরে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল টাইগাররা, সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে তাও বিবর্ণ। ফলে লঙ্কানদের মাটিতে আদৌ কোনো ইতিবাচক ফল বাংলাদেশ আদায় করতে পারবে কি-না তা ভাবতে গিয়ে কূল-কিনারা হারিয়ে বসার জোগাড় ক্রিকেটপ্রেমীদের।

বাংলাদেশের অন্তর্বর্তী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনও মানছেন, তিন ম্যাচ সিরিজের শুরুর ওয়ানডে হেরে ব্যাকফুটে চলে গেছে বাংলাদেশ। তবে ঘুরে দাঁড়ানোর সামর্থ্য তার শিষ্যদের রয়েছে বলেও বিশ্বাস করছেন সুজন, ‘আজকে অনুশীলন বন্ধ ছিল। কারণ এখানে খুব গরম। এছাড়া গতকাল আমরা ম্যাচ খেলেছি। তামিম (ইকবাল) তারপরও অনুশীলন করতে চেয়েছে। ওর কারণেই আসা (মাঠে)। আমি মনে করি ম্যাচ হারলে কখনওই ভালো লাগে না। তারপরও আমাদের সুযোগ আছে। যদি আমরা কালকের ম্যাচে ভালো করতে পারি, তাহলে কামব্যাক করতে পারব। আমি মনে করি, আমাদের সামর্থ্য আছে। আমি বিশ্বাস করি, আমরা ঘুরে দাঁড়াব।’


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2017 AjKaal24.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com