মঙ্গলবার, ১৩ অগাস্ট ২০১৯, ০২:২৮ অপরাহ্ন

এইচএসসির ফল প্রকাশ; গড় পাস ৭৩.৯৩

এইচএসসির ফল প্রকাশ; গড় পাস ৭৩.৯৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারা দেশে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এ বছর আটটি সাধারণ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ। আর জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৭ হাজার ২৮৬ জন শিক্ষার্থী।

গত বছর এ পরীক্ষায় পাসের হার ছিল ৬৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছিল ২৯ হাজার ২৬২ জন। সেই হিসাবে এবার উচ্চ মাধ্যমিকে পাসের হার বেড়েছে ৭ দশমিক ২৯ শতাংশ পয়েন্ট। আর পূর্ণাঙ্গ জিপিএ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ১৮ হাজার ২৪ জন।

বুধবার ( ১৭জুলাই) সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি।

এ সময় তিনি জানান, মোট ১০টি শিক্ষাবোর্ডে এবার পরীক্ষার্থী ছিল ১৩ লাখ ৩৬ হাজার ৬২৯জন। পাস করেছে ৯ লাখ ৮৮ হাজার ১৭২ জন। শতভাগ উত্তীর্ণ প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৯০৯টি এবং কেউ পাস করেনি এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৪১টি। এছাড়া ৮টি সাধারণ শিক্ষাবোর্ডে পাসের হার ৭১.৮৫ শতাংশ।

মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডে পাসের হার ৮৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে দুই হাজার ৪৩জন। কারিগারি শিক্ষাবোর্ডে পাসের হার ৮২ দশমিক ৬২ শতাংশ, যেখানে জিপিএ-৫ পেয়েছে তিন হাজার ৩৬ জন শিক্ষার্থী।

এ সময় উত্তীর্ন শিক্ষার্থদের অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমৃদ্ধ দেশ গড়তে বিজ্ঞান, কারিগরি ও প্রযুক্তি ভিত্তিক শিক্ষা বাড়াতে হবে।

পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এবার পরীক্ষা হয়েছে ‘সুন্দর’ পরিবেশে।

“এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং নকল সর্বোতভাবে বন্ধ হয়েছে। পরীক্ষা নিয়ে কোনো বিভ্রান্তি প্রতারণা কিংবা গুজবের সৃষ্টি হয়নি।“

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ পাসের হারকে ‘যথেষ্ট গ্রহণযোগ্য ও ভালো’ ফলাফল হিসেবে বর্ণনা করেন।

চলতি বছর ১ এপ্রিল থেকে ২৩ মে দেশের দুই হাজার ৫৬০টি কেন্দ্রে এইচএসসি ও সমমানের লিখিত ও ব্যবহারিক পরীক্ষা চলে।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, দশ শিক্ষা বোর্ডে এবার সব মিলিয়ে পরীক্ষার্থী ছিল ১৩ লাখ ৩৬ হাজার ৬২৯ জন। তাদের মধ্যে পাস করেছে ৯ লাখ ৮৮ হাজার ১৭২ জন।

এর মধ্যে এইচএসসিতে আট সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে ৭১ দশমিক ৮৫ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪১ হাজার ৮০৭ জন।

মাদ্রাসা বোর্ডে এবার পাস করেছে ৮৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে ২ হাজার ২৪৩ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে।

আর কারিগরি ও ভোকেশনাল বোর্ডে পাসের হার এবার ৮২ দশমিক ৬২ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ২৩৬ জন।

এবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ৪১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থী পাস করতে পারেনি। আর ৯০৯টি প্রতিষ্ঠান থেকে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া সব শিক্ষার্থীই পাস করেছে।

বেশ কয়েক বছর ধরে পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে ফাঁস হলেও এবার প্রশ্ন ফাঁসের কোনো ধরনের অভিযোগ ছাড়াই উচ্চ মাধ্যমিকের সব পরীক্ষা শেষ হয়।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটি জানিয়েছে, সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ই-মেইলে কেন্দ্র ও প্রতিষ্ঠানের ফলাফলের সফটকপি পাওয়া যাবে।

প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তর থেকে ফলের হার্ডকপি সংগ্রহ করা যাবে। বোর্ড থেকে ফলাফলের কপি সরবরাহ করা হবে না।


© All rights reserved © 2017 AjKaal24.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com