সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ১২:১২ পূর্বাহ্ন

উত্তরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, গাইবান্ধায় প্লাবিত ১৯টি ইউনিয়ন

উত্তরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, গাইবান্ধায় প্লাবিত ১৯টি ইউনিয়ন

উত্তরবঙ্গের বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। বিপৎসীমার উপরে বইছে তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র ও ঘাঘট নদীর পানি। কুড়িগ্রামে ৫০ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এছাড়াও পানি উঠে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়কে যানচলাচল ব্যাহত হচ্ছে। আর পাহাড়ী ঢল না থাকায় খাগড়াছড়ি ও রাঙ্গামাটির অবস্থা উন্নতি হচ্ছে। যদিও এখনও স্বাভাবিক হয়নি বান্দবানের সাথে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ।

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে যেন মাছ ধরার মহোৎসব। স্বাভাবিক সময়ে যে সড়কে দাপিয়ে বেড়ায় যানবাহন। এখন সেখানে হাটুপানি।

টানা-বৃষ্টি সাথে পাহাড়ি ঢল, নদ-নদীর পানি বেড়ে তলিয়ে গেছে দেশের গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি।

বন্যা পরিস্থিতির বড় অবনতি হয়েছে উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে।

বিপৎসীমার উপরে বইছে ধরলা, ব্রহ্মপুত্র, ঘাঘট নদীর পানি। গাইবান্ধায় শহররক্ষা বাঁধের একাংশ ভেঙে পানি ঢুকে নতুন করে প্লাবিত হয়েছে ১৯টি ইউনিয়ন। বাঁধ সংস্কারে কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

কুড়িগ্রামে ৫২ হাজার পরিবার পানিবন্দি। বাড়ছে মনু, ধলাই ও কুশিয়ারার পানি। নতুন করে ভাঙন দেখা দিয়েছে ধলাই নদীর বাঁধে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ও রহিমপুর ইউনিয়নের মানুষও। হুমকিতে রয়েছে মনু নদী বাঁধ।

যমুনার পানি বেড়ে জামালপুর ও বগুড়ায় বন্যা পরিস্থিতি ধীরে ধীরে অবনতি হচ্ছে। ব্রাহ্মণাবাড়িয়ার আখাউড়ায় ভারতের হাওর নদীর বাঁধ ভেঙে ১০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

তবে কমছে সুরমা নদীর পানি। উন্নতির দিকে সুনামগঞ্জের পরিস্থিতি। আর, নতুন করে পাহাড়ী ঢল না থাকলেও বান্দরবানে সাত দিন ধরে সারাদেশের সাথে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়িতে কমতে শুরু করেছে ঢলের পানি।


© All rights reserved © 2017 AjKaal24.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com