বুধবার, ১৪ অগাস্ট ২০১৯, ০৮:৩৩ পূর্বাহ্ন

দেশের বিভিন্ন স্থানে বাড়ছে নদনদীর পানি

দেশের বিভিন্ন স্থানে বাড়ছে নদনদীর পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক : টানা বৃষ্টি আর উজানের ঢলে দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। সিলেটের সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে। লালমনিরহাটে তিস্তার পানি বেড়ে তলিয়ে গেছে নিুাঞ্চল। এতে পনিবন্দি হয়ে পড়েছে অন্তত ২৫ গ্রামের মানুষ। বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে কংশ, জাদুকাটা, খোয়াই, সাঙ্গু ও মাতামুহুরী নদীর পানি। এদিকে, বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কের যানবাহন চলাচল আজো বন্ধ রয়েছে।

কয়েক দিনের ভারি বৃষ্টি ও উজানের ঢলে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়ে বাড়ছে পানিবন্দি মানুষের সংখ্যা। সিলেটের কানাইঘাটের সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ৫১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছে। জাফলংয়ে পিয়াইন নদী ও লালাখালে পানির চাপ বেড়ে জৈন্তাপুর ও গোয়াইনঘাটের নিুাঞ্চল তলিয়ে গেছে।

পাহাড়ি ঢলে সড়ক ডুবে তাহিরপুরের সাথে সুনামগঞ্জের যোগাযোগ তিনদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে কয়েক লাখ মানুষ। সুনামগঞ্জে সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ৯১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। মৌলভীবাজারে কুশিয়ারা নদীর পানিও বইছে বিপদসীমার উপর দিয়ে।

লালমনিরহাটে তিস্তা-ধরলাসহ সব নদীর পানি বেড়েছে। সদর, পাটগ্রাম, হাতীবান্ধা, কালীগঞ্জ ও আদিতমারী উপজেলার নিুাঞ্চল ডুবে ২৫টি গ্রামের অন্তত ২০হাজার পরিবার পানিবন্দী রয়েছে। তলিয়ে গেছে বিভিন্ন ফসলের ক্ষেত।

এদিকে, দুর্গতদের জন্য ৬৮ টন চাল বরাদ্দ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

গাইবান্ধায় তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র, ঘাঘট ও করতোয়ার পানি বেড়েছে। ফেনীর পরশুরামে মুহুরী এবং ফুলগাজীতে কহুয়া নদীর ১৫টি স্থানে বাঁধ ভেঙ্গে প্লাবিত হয়েছে ২০টি গ্রাম।

বান্দরবানের সাঙ্গু ও মাতামুহুরী নদীর পানির বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে। বান্দরবানের সাথে সারা দেশর সড়ক যোগাযোগ বন্ধ আজও বন্ধ রয়েছে। পাহাড় ধসের আশংকায় ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসরতদের ১২৬টি আশ্রয় কেন্দ্রেগুলোয় সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

এদিকে, রাঙ্গামাটিতে কাপ্তাই হ্রদের পানি বেড়েছে। রাঙ্গামাটি-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কলাবাগান এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে ।


© All rights reserved © 2017 AjKaal24.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com